এদেরই একটা সময় চলে গেছে যখন তারা সেই ফোনেই কথা বলে

কিছু মানুষের ফোন সবসময় সাইলেন্ট অথবা ভাইব্রেশন ফাংশনে অন করা থাকে ।এদের ফোনে কল করলে কখনও ওয়েটিং দেখায় না । আবার কেউ হঠাৎ কল করলে কখনও কখনও কল রিসিভ ও হয় না । কারন ফোন সাইলেন্ট থাকে তাই।

এদের ফোনে ব্যালেন্স ও থাকে না আবার কখনও কখনও ফোনে টাকা থাকলেও তার মেয়াদ শেষ হয়ে যায় । এদের তো ফোন দেওয়ার মতও কেউ থাকে না। যাকে ফোন দিয়ে অন্তত টাকার মেয়াদ শেষ হওয়ার সাথে সাথে ব্যালেন্স ও শেষ করতে পারবে । সারাদিন ফোন হাতে রাখার দরকার পরে না , কেননা এদের এমন কেউ নেই যে ফোন করে না পেলে রাগ করবে ।

হয়ত এদেরই একটা সময় চলে গেছে যখন তারা সেই ফোনেই কথা বলে সময় পার করেছে। হয়ত ফোনটা একটা মিনিটের জন্যও হাত ছাড়া করত না । হয়ত তখন ফোনের ব্যালেন্স এর মেয়াদ ও শেষ হত না । রোজ ফোনে টাকা লোড হত । রোজ ফোনে রিংটন বাজত । মেসেজের টুংটাং শব্দের মেলা লেগেই থাকত । প্রয়োজনে ফোন ভাইব্রেশন রাখত ।

তখন ভাইব্রেশন রাখত এই জন্য যে, ফোনে রিংটন বাজলে কেউ যদি জিগাই তখন কি উত্তর দেবে এই ভেবে। আর এখন ভাইব্রেশন রাখে এই জন্য যে , সিম অফারের ফোন এসে তাকে যেনো বিব্রত না করে তাই জন্য । দিন শেষে ফোনটা হাতে নিয়ে কল লিস্টে তাকিয়ে একটা দীর্ঘশ্বাস ছাড়া ব্যতীত এদের কিছু করার থাকে না ।

এরাও চায় কেউ একজন ফোন করে বলুক “কেমন আছো তুমি” ? হঠাৎ ফোনটা কেপে উঠলে এদের মনের মধ্যেও কেপে উঠে । সেই কেপে উঠা যদি কেউ দেখত তবে সেও ভয় পেত । ফোনে হঠাৎ আলো জ্বলে উঠলে এদের মনেও আশা জেগে উঠে হয়ত কেউ একজন মেসেজ করেছে ।

কিন্তু হায় ! সে ভুলে যায় ফোনের আলো জ্বলে উঠলেই সেইটা অপেক্ষিত মানুষের মেসেজ নাও হতে পারে । কিন্তু এদের এই ছোট্ট ছোট্ট বিষয় গুলো লক্ষ্য করার জন্য কেউ থাকে না .। আশে পাশে অনেক মানুষ থাকা সত্ত্বেও এরা একা । এদের প্রতিক্ষা যেন শেষ হবার নয় ।

দিন যায় ,সপ্তাহ যায়, মাস যায় আবার বছর ও পেরিয়ে যায় তবুও তাদের অপেক্ষার অবসান ঘটাতে কেউ আসে না । একটা সময় অপেক্ষা শেষ হয় হা হুতাশ দিয়ে ,কিছু না বলা কথা দিয়ে,একটা রক্ত মাংসে গড়া মানুষ হয়েও নিজেকে মৃত লাশ ভেবে।

যার কোনো অনুভূতি নেই , নেই কোন চাওয়া , নেই কিছু হারানোর ভয় ,নেই নতুন করে কিছু পাওয়ার আশা। সময়ের সাথে সব বদলে যায় । সময় কথা বলে । তাই জীবনকে সময়ের সাথে চালিয়ে নিতে হয় । এদের মন কিছু ভোলে না .. এরা শুধু সময়ের সাথে পরিবেশের উপর ভিত্তি করে সব কিছু মানিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করে আর বলতে থাকে আমরাই পারি,আমরাই পারব ,আর আমাদেরকে পারতেই হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *